আর নয় ভারত-পাকিস্তান, এবারের এশিয়া কাপে যাদেরকে চ্যাম্পিয়ন দেখতে চায় সাকিব

বিগত বছর গুলো দেখলে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। ২০১২ সালের ওয়ানডে ফরম্যাট, ২০১৬ সালের টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট ও ২০১৮ সালের ওয়ানডে ফরম্যাট- এশিয়া কাপের শেষ চার আসরের মধ্যে তিনবারই ফাইনাল খেলেছে টিম

টাইগার। কিন্তু শেষ হাসি হাসতে পারেননি সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিমরা।শেষ চার আসরে তিনবার রানার্সআপ হওয়ার গ্লানি নিয়েই এবার টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের এশিয়া কাপ খেলতে গিয়েছে বাংলাদেশ দল।

এই আসরে নিজেদের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কথা না বললেও, নতুন দলের হাতে শিরোপা দেখতে চাওয়ার আশা ব্যক্ত করেছেন টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।এখন পর্যন্ত হওয়া এশিয়া কাপের ১৪ আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে শুধুমাত্র ভারত,

শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান। শেষ দুই আসরসহ সর্বোচ্চ সাতবারের চ্যাম্পিয়ন ভারত। এছাড়া শ্রীলঙ্কা জিতেছে পাঁচবার, পাকিস্তান বাকি দুইবার। এবার নতুন দলের হাতে শিরোপা দেখার ইচ্ছা সাকিবের।বৃহস্পতিবার টি-টেন লিগের দল বাংলা টাইগার্সের

একটি অনুষ্ঠানে সাকিব বলেছেন, ‘আমরা ফাইনালে উঠলে প্রতিপক্ষ হিসেবে যেকোনো দলকে পেতেই ভালো লাগবে। আশা করছি এবার কোনো নতুন দল শিরোপা জিতবে। ভারত, পাকিস্তান বা শ্রীলঙ্কা তো অনেকবারই জিতেছে। আশা করছি এবার

নতুন দলের হাতে শিরোপা উঠবে।’এশিয়া কাপ খেলতে আরব আমিরাতে গিয়ে বৃহস্পতিবারই প্রথম অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ দল। নিজেদের প্রস্তুতি সম্পর্কে সাকিব বলেছেন, ‘এশিয়া কাপের জন্য প্রস্তুত হতে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে

যাচ্ছি। এই ফরম্যাটে কখন কী হয় তা বলা যায় না। নিশ্চিত করে বলা যায় না, কে জিতবে কে হারবে। এসব টুর্নামেন্টে দ্রুত ছন্দ খুজে পাওয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ।’আগামী মঙ্গলবার আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এশিয়া কাপের যাত্রা শুরু হবে

বাংলাদেশের। সেই ম্যাচটি জিতে আসর শুরুর প্রত্য্য ব্যক্ত করে সাকিব বলেছেন, ‘প্রথম ম্যাচটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা প্রথম ম্যাচ জিততে মুখিয়ে আছি, সেটা হলে পরবর্তী সবই ইতিবাচক হবে আশা করছি।’

এদিকে টি-টেন লিগের আসন্ন মৌসুমে সাকিব আল হাসানকে আইকন ও অধিনায়ক হিসেবে ঘোষণা করেছে বাংলা টাইগার্স। এর আগে কেরালা কিংসের হয়ে এ টুর্নামেন্টের প্রথম আসর খেলেছেন সাকিব। তিনি তেমন কিছু করতে না পারলেও, চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল কেরালা।

এবারও টি-টেন লিগে দলগতভাবে ভালো কিছু করার আশা জানিয়ে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার বলেন, ‘টি-টেনের প্রথম আসরে আমি খেলেছিলাম, চ্যাম্পিয়নও হয়েছিলাম। খুবই ভালো লেগেছিল, এই ফরম্যাটটা আমার মনে ধরেছে। যখন শুনেছি এবছর বাংলা টাইগার্স আমাকে নিতে চাচ্ছে আমি সুযোগটি লুফে নিয়েছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *