এশিয়া কাপ দিয়েই টি-টোয়েন্টিতে একেবারেই বদলে যাবে বাংলাদেশ

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বর্তমান সময়টা একেবারেই ভালো যাচ্ছে না বাংলাদেশ দলের। টানা হারে বিপর্যস্ত টাইগাররা চাপে পড়ে অধিনায়কত্বে পরিবর্তন এনেছে। এই ফরম্যাটে আসন্ন এশিয়া কাপ

দিয়ে আবার নেতৃত্ব ফিরবেন সাকিব আল হাসান। ২০ ওভারের ক্রিকেটে নিজেদের দুর্দিন ঘোচাতে সাকিবের নেতৃত্বে এশিয়া কাপকে পাখির চোখ করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)

সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি আজ বৃহস্পতিবার মিরপুরে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে ইঙ্গিত দিয়েছেন, এশিয়া কাপ দিয়ে টি-টোয়েন্টিতে ছন্দ ফিরতে

গোটা দলের মানসিকতা, চিন্তাধারা বদলাবে।  পাপন বলছিলেন, ‘টি-টোয়েন্টিতে আমরা শক্তিশালী দল নই। কী করা যায় এটা নিয়ে ভাবতে গিয়ে আমরা একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এই এশিয়া কাপে পুরো

মানসিকতা, চিন্তাধারা সব কিছু হঠাৎ করে বদলে ফেলতে চাচ্ছি। দেখতে চাই নতুন করে শুরু করা যায় কিনা।’ বিশ্বকাপে উন্নতি করতে হলে এশিয়া কাপ থেকে দলের চিন্তাধারায় পরিবর্তনের উপর জোর

দেন বিসিবি সভাপতি, ‘এশিয়া কাপ কিন্তু বিশ্বকাপের পর সবচেয়ে বড় আসর। গত বিশ্বকাপে আমাদের পারফরম্যান্স খুবই খারাপ ছিল। হঠাৎ করে এখন এত তাড়াতাড়ি বের হতে পারব কি-না জানি না।

আমাদের মাথায় যদি চিন্তাধারা থাকে আমরা উন্নতি করতে চাই আর এই চিন্তা যদি এশিয়া কাপ থেকে শুরু না করি তাহলে বিশ্বকাপে গিয়ে আরও খারাপ অবস্থা হবে।’  এদিকে এশিয়া কাপের জন্য ১৭

সদস্যের দল দিয়েছে বিসিবি। এই স্কোয়াডে ব্যাটসম্যানের ছড়াছড়ি হলেও এনামুল হক বিজয় আর পারভেজ হোসেন ইমন ছাড়া স্বীকৃত কোনো ওপেনার নেই। বিকল্প ভবনায় আছেন শেখ মেহেদী হাসান।

এর বাইরে মুশফিকুর রহিম, মেহেদী হাসান মিরাজ ও সাকিব আল হাসানকে ভাবনায় রেখেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। পাপন সিদ্ধান্ত ছেড়েছেন সাকিবের ওপর। পাপন বলেন, ‘তামিম নেই, লিটন নেই।

কপাল ভালো বিজয়কে কয়েক মাস আগে যুক্ত করা হয়েছিল, এখন ও অন্তত আছে। আরও কয়েকজনকে দিয়েও তো চেষ্টা করেছি। মুনিম কয়েকটা ম্যাচ এবং ইমন একটা ম্যাচ, কিন্তু যথেষ্ট নয়। ওদেরকে

আরও সময় দিতে হবে।’ প্রতিপক্ষ দেখে ওপেনিং জুটি ঠিক করার বার্তা পাপনের কণ্ঠে, ‘ইমন আসতে পারে ওপেনিংয়ে। ইমন না আসলে কে আসতে পারে? অনেকের নাম শুনেছি। শেখ মেহেদী, মিরাজ,

মুশফিক আছে। তবে কোথায় খেলা হচ্ছে আর প্রতিপক্ষ কে, কেমন বল করতে পারে, এসব বিষয় মাথায় রেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সিদ্ধান্ত অধিনায়ক নেবে। অধিনায়ক চাইলে নিজেও ওপেন করতে পারে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *