সোমবার , ৩১ জানুয়ারি ২০২২ | ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. আন্তজাতিক সংবাদ
  3. ক্রিকেট
  4. খেলাধুলা
  5. ফুটবল
  6. শিক্ষা
  7. স্বাস্থ্য এবং পরামর্শ

ক্রিকেটার-ফ্র্যাঞ্চাইজি মুখোমুখি, অতঃপর কিছু প্রশ্ন-উত্তর!

প্রতিবেদক
Sanarbangla Publisher
জানুয়ারি ৩১, ২০২২ ৬:৩১ পূর্বাহ্ণ

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) তাদের ক্রিকেটারদের উন্নতিতে বিস্তর ভূমিকা রেখেছে। তাদের দেখাদেখি বাংলাদেশেও ২০১২ সালে শুরু হয়েছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)। আইপিএলে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড, ফ্র্যাঞ্চাইজি এবং

ক্রিকেটারদের মধ্যে পেশাদারিত্বের বন্ধন থাকে সুদৃঢ়। কিন্তু বিপিএলে তেমনটা খুঁজে পাওয়া বেশ দুষ্কর। বিপিএল মানেই বিতর্ক আর অসংলগ্নতার ছড়াছড়ি। বরাবরের মতো এবারও মাঠের বাইরের ইস্যু নিয়ে উত্তাপ ছড়াচ্ছে বিপিএল।রবিবার

সারাদিনই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের অধিনায়ক মেহেদি হাসান মিরাজ। নিজেদের মাঠে ২০২ রান করা এবং মৃত্যুঞ্জয়ের হ্যাটট্রিকের পর ম্যাচ জয়-আলোচনা হবেই, কিন্তু সেসব ছাপিয়ে যায় হুট করে মিরাজের চট্টগ্রাম

ছেড়ে যাওয়ার খবরে। তবে এই আলোচনা দুপুরের মধ্যেই থামিয়ে দিতে পারতেন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তা না করে মিরাজ ইস্যুটি নিয়ে রাত অব্দি অপেক্ষা করলেন! এখানেই ফ্র্যাঞ্চাইজিদের পেশাদারিত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠে যায়!ঘটনার

সূত্রপাত হয় শনিবার সিলেট সানরাইজার্সের বিপক্ষে ম্যাচের আগে। হুট করেই চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের নিয়মিত অধিনায়ক মিরাজের বদলে টস করলেন নাঈম ইসলাম। শনিবার ম্যাচ চলাকালীন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স এক বিবৃতিতে জানায়, পল নিক্সন

চলে যাওয়ার সময় বেশ কিছু পরামর্শ দিয়ে গেছেন। সেই পরামর্শের আলোকেই মিরাজকে চাপমুক্ত রাখতেই মূলত নতুন অধিনায়ক হিসেবে নাঈমকে দায়িত্ব দেওয়া হয়! পরে জানা যায় পল এমন কিছু বলেননি। মিরাজের আপত্তি অবশ্য নাঈমকে

অধিনায়ক বানানো নিয়ে নয়, ম্যাচ শুরুর তিন ঘণ্টা আগে হুট করে এমন সিদ্ধান্তর কারণেই বিস্মিত তিনি!ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ক্রিকেট টুর্নামেন্টে এমন অনেক কিছুই হয়ে থাকে। বিভিন্ন দেশে, বিভিন্ন লিগে হুট করেই অধিনায়ক কিংবা খেলোয়াড়

বদলানোর ঘটনা আছে। বিপিএলের ২০১২-১৩ মৌসুমেও এমন একটি ঘটনা ঘটেছিল। সেবার চট্টগ্রামেই চিটাগং কিংসের বিপক্ষে ম্যাচের ঠিক আগমুহূর্তে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে দল থেকে বাদ দিয়ে নেতৃত্ব দেওয়া

হয় মোহাম্মদ আশরাফুলকে। পরে আকসুর তদন্তে বেরিয়ে আসে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের বিষয়টি। মিরাজকে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার ঘটনায় এমন কিছু এখন‌ও পাওয়া যায়নি!তবুও প্রশ্ন থেকে যায়! স্বাভাবিকভাবেই মিরাজকে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে

দেওয়া যেত, কিন্তু সেটি ম্যাচের আগ মূহুর্তে কেন? মিরাজের ক্ষোভটা এখানেই! রবিবারের সংবাদ সম্মেলনে মিরাজ বলে গেছেন, ‘আমার কাছে খুব্ সারপ্রাইজিং মনে হয়েছে, খেলার দিন আমাকে বলা হয়েছে, তুমি আর অধিনায়কত্ব করছো না।

আমি ম্যানেজারের কাছে কারণ জানতে চাইলাম, উনি আমাকে বললেন, ম্যানেজমেন্ট থেকে এই সিদ্ধান্ত এসেছে।’ মিরাজকে নিয়ে এমন সিদ্ধান্তে টিম ম্যানেজমেন্ট পেশাদারিত্ব দেখাতে পারেনি।যদিও বিষয়টিকে যোগাযোগের ঘাটতি হিসেবেই

দেখছেন দলটির কর্ণধার। আকতার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কেএম রিফাতুজ্জামান বলেছেন, ‘পল নিক্সন টিম ম্যানেজমেন্টের একজন। তারা আরও কয়েকজন আছেন ওখানে। প্রায় পাঁচ-ছয় জন আছেন। সবাই মিলেই সিদ্ধান্ত নেওয়া।

তারা হয়তো কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে চেয়েছিল। তবে অধিনায়ক বদলে সমস্যা হয়নি। সমস্যা হয়েছে মিরাজ আগে ভাগে জানতে না পারায়।’চট্টগ্রামের ফ্র্যাঞ্চাইজি পুরো বিষয়টিকেই যোগাযোগের ঘাটতি হিসেবে দেখছেন। যদিও তাদের দ্রুততম সময়ের মধ্যেই সুযোগ ছিলো বিষয়টি সুরাহা করার। মিরাজ যখন স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বিমানবন্দরে যেতে রওয়ানা দিলেন, তখনই

কেন উদ্যোগ নেয়নি ফ্র্যাঞ্চাইজিটি? সকাল গড়িয়ে দুপুর, দুপুর গড়িয়ে বিকাল-ইস্যুটি সমাধান করার জন্য যথেস্ট সময় ছিলই!যদিও রিফাতুজ্জামান বলছেন অল্প সময়ের ব্যবধানেই নাকি ঘটনাটি ঘটে গেছে, ‘যোগাযোগের ঘাটতি এবং ভুল বোঝাবুঝি ছিল। যোগাযোগের ঘাটতিটাই বেশি ছিল। যোগাযোগ না হওয়ার কারণে এখানে ভুল বোঝাবুঝি হয়ে গেছে। সব মিলিয়ে এখানে

কয়েকটা ঘটনা ঘটে গেছে। অনেক অনেক সময় না, অল্প কিছুক্ষণের মধ্যে এগুলো ঘটে গেছে। শেষ কয়েক দিন ধরে একটা কমিউনিকেশন গ্যাপ ছিল এখানে। বলতে পারেন টিম ম্যানেজমেন্টে যারা দলটাকে পরিচালনা করে তাদের সঙ্গে, অধিনায়ক মিরাজের সঙ্গে একটা গ্যাপ তৈরি হয়েছে।’এদিকে টিম ম্যানেজমেন্ট ও বোর্ডকে পাঠানো চিঠিতে পারিবারিক ইস্যুর কথা জানিয়েছিলেন মিরাজ। কিন্তু সংবাদমাধ্যমকে বললেন উল্টোটা! দলটির চিফ অপারেটিং অফিসার ইয়াসির আলমকে

কালপ্রিট বলেছেন মিরাজ। তিনি চট্টগ্রামের এই পদে থাকলে কোন ম্যাচ না খেলার হুমকিও দেন এই অলরাউন্ডার। পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে মিরাজ এভাবে বলতে পারেন কিনা, সেটি নিয়েও প্রশ্ন থাকছেই। ফ্র্যাঞ্চাইজির টিম ম্যানেজমেন্ট যে কোন কারণেই তাদের অধিনায়ক বদলের এখতিয়ার রাখেন। কিন্তু মিরাজের শুরুর বক্তব্য ঠিক থাকলে নতুন করে এই প্রশ্নগুলো আসতো না!

সংবাদমাধ্যমের এমন প্রশ্নে মিরাজ অবশ্য জানিয়েছেন দুটি বিষয় একসঙ্গে করেই ঢাকা যেতে চেয়েছিলেন তিনি, ‘হ্যাঁ, ওটাও (অধিনায়কত্ব কেড়ে নেয়া) একটা কারণ। ওটায় আমি কষ্ট পেয়েছি। তবে পারিবারিক কারণটাই প্রধান। দরকার হলে ঢাকায় আবার দলের সঙ্গে যোগ দেব।’

সর্বশেষ - ক্রিকেট

আপনার জন্য নির্বাচিত

বলে আমূল পরিবর্তন, ৩ ম্যাচে ৮ উইকেট ! হুট করে বদলে যাওয়া তাসকিনের জন্য এলো নতুন সতর্কবার্তা

ব্রেকিং নিউজঃ সব ধরনের ক্রিকেট থেকে দীর্ঘ বিশ্রামে সাকিব, জেনেনিন কতদিনের জন্য বিরতিতে

দারুন সুখবর: দশমিকের মারপ্যাঁচে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলে ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ে উপরে উঠে গেল বাংলাদেশ

বিসিবির থেকে সাকিব বড় বড় সুবিধা পেলেও সুবিধা থেকে বঞ্চিত হলেন তামিম ইকবাল !

মাঠে খেলতে নেমে গ্যালারির দর্শকদের কাঁদালেন এই দুই তারকা ফুটবলার

যেখানেই থাকুক না কেন, কেউ না জানলেও মাশরাফী ভাই কীভাবে যেন জেনে যান’

এবারের আইপিএলে নতুন রূপে নতুন দলে যোগ দিলেন গতি তারকা লাসিথ মালিঙ্গা !

পেস বোলিংয়ে চোটের ধাক্কা সামলাতে, এবার টেস্টে ফিরছেন মোস্তাফিজ! জেনেনিন বিস্তারিত

অবশেষে এক নারিনের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়েই হেরে গেল চট্টগ্রাম

ছক্কার নতুন রেকর্ড : এবারের আইপিএলে সবচেয়ে কম বয়সে সর্বোচ্চ ছক্কা হাঁকালেন বেবি এবি