গ্রুপে দ্বিতীয় হয়েও ‘প্রথম’-র তকমা পেল শ্রীলঙ্কা; কিন্তু কেন

গ্রুপ পর্বে আফগানিস্তানের বিপক্ষে হারলেও বাংলাদেশের বিপক্ষে জিতে দ্বিতীয় হয়েও ‘প্রথম’-র তকমা জুটল শ্রীলঙ্কার। গ্রুপ ‘বি’-তে দ্বিতীয় স্থানে শেষ করলেও আয়োজক হওয়ার সুবাদে প্রথম দল হিসেবে (বি ১) ‘সুপার ফোর’-এর টিকিট পেল দ্বীপরাষ্ট্র।

এবার এশিয়া কাপের নিয়ম অনুযায়ী, প্রতিটি গ্রুপ থেকে ‘সুপার ফোর’-এ দুটি দল উঠবে। অর্থাৎ ‘সুপার ফোর’-এ মোট চারটি দল থাকবে। প্রথম দুটি ম্যাচে জিতে গ্রুপ ‘বি’ থেকে প্রথম দল হিসেবে ‘সুপার ফোর’-এ উঠে গিয়েছিল আফগানিস্তান (মোট চার পয়েন্ট)। আর বৃহস্পতিবার বাংলাদেশকে হারিয়ে রশিদ খানদের সঙ্গী হয়েছে শ্রীলঙ্কা (দুই পয়েন্ট)। গ্রুপে দ্বিতীয় হয়েও ‘বি ১’-র (গ্রুপ ‘বি’ প্রথম দল) তকমা পেয়েছেন দাসুন শানাকারা। আবার প্রথম হয়েও ‘বি ২’-এ তকমা জুটেছে আফগানিস্তান।

কিন্তু কেন এমন নিয়ম? এমনিতে যে নিয়মের প্রচলন আছে, তাতে গ্রুপ ‘বি’-তে প্রথম হওয়ায় ‘বি ১’ হিসেবে শেষ চারে যাওয়ার কথা ছিল আফগানিস্তানের। শ্রীলঙ্কার ‘বি ২’ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এবারের এশিয়া কাপের নিয়ম অনুযায়ী, পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় হলেও আয়োজক দেশ ‘বি ১’ হিসেবে ‘সুপার ফোর’- যাবে। এবার সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে খেলা হলেও আদতে এশিয়া কাপের আয়োজক হল শ্রীলঙ্কা। তাতে অবশ্য তেমন কোনও লাভ হবে না। কারণ ‘সুপার ফোর’-র চার দলই একে অপরের বিরুদ্ধে খেলবে।

১। শ্রীলঙ্কা বনাম আফগানিস্তান, ৩ সেপ্টেম্বর, শারজা (বি১ বনাম বি২)।

২। ভারত বনাম পাকিস্তান/হংকং, ৪ সেপ্টেম্বর, দুবাই (এ১ বনাম এ২)।

৩। ভারত বনাম শ্রীলঙ্কা, ৬ সেপ্টেম্বর, দুবাই (এ১ বনাম বি১)।

৪। পাকিস্তান/হংকং বনাম আফগানিস্তান, ৭ সেপ্টেম্বর, শারজা (এ২ বনাম বি২)।

৫। ভারত বনাম আফগানিস্তান, ৮ সেপ্টেম্বর, দুবাই (এ১ বনাম বি২)।

৬। শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান/হংকং, ৯ সেপ্টেম্বর, দুবাই (বি১ বনাম এ২)।

ফাইনাল, ১১ সেপ্টেম্বর, দুবাই।

..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *