‘চেষ্টা নয়, করে দেখানোর চ্যালেঞ্জ থাকতে হবে’ – এবাদত

লাল বলের আলো ছড়ানো এবাদত হোসেন এখন সাদা বলের চ্যালেঞ্জের মুখে। জিম্বাবুয়ের মাটিতে ওয়ানডে অভিষেক হওয়া এই পেসারকে প্রথমবার টি-টোয়েন্টিতে ডাকা হয়েছিল। যদিও এটা

ভালো যে সীমিত ওভারের ক্রিকেট উড়ন্ত শুরু হয়েছে, এই ক্রিকেটার এশিয়া কাপের শীর্ষ ফ্লাইটের জন্য একটি গুরুতর চ্যালেঞ্জ তৈরি করবেন। অবশ্য তিনি মধ্যপ্রাচ্যে যাবেন শো-অফের চেষ্টায়,

এই নতুন চ্যালেঞ্জ জয়ের চেষ্টায় নয়। এশিয়ার সেরা হয়ে টুর্নামেন্টের গত চার সংস্করণের তিনটিতেই ফাইনাল খেলেছে বাংলাদেশ। তার মধ্যে ২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ইভেন্ট।তবে

লাল-সবুজের দলটি এই ফরম্যাটে ইদানীং লড়তে পারেনি। তারা তাদের শেষ ১৯ ম্যাচের মাত্র চারটিতে জিতেছে। এই চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে দল কতটা আশাবাদী? লক্ষ্য কি? আজ (১৬ আগস্ট)

মিরপুরে ইবাদতকে এমন সব প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি চেষ্টা এক জিনিস আর দেখাব অন্য ‘আমার জীবন থেকে আমি চেষ্টা করবো এই জিনিসটা শেষ, আমি

করে দেখাবো, আমরা করবো ইন শা আল্লাহ। আমরা দল হিসেবে ভালো খেলছি না মানে এই না যে আমরা টি-টোয়েন্টি খেলতে পারি না। আমরা অদূর ভবিষ্যতে ভালো দল হয়ে দাঁড়াবো ইন শা আল্লাহ।

আপনারা আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’ ২৭ আগস্ট থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পর্দা উঠবে এশিয়া কাপের। শারজাহ ও দুবাইতে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচগুলো। বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ৩০

আগস্ট আফগানিস্তানের বিপক্ষে, বি গ্রুপে টাইগারদের সঙ্গী শ্রীলঙ্কাও। আরব আমিরাতের গরম কোনো সমস্যা হবে কীনা জানতে চাওয়া হয় এবাদতের কাছে। অবশ্য এসব অজুহাতে একদমই যেতে

চাননি টাইগার পেসার। তিনি বলেন, ‘গরম কোনো এক্সকিউজ না, আমাদের দেশেও অনেক গরম। গরম আমার কাছে তেমন কিছু মনে হচ্ছে না। উইকেটটা ওখানে ভালো থাকবে বুদ্ধি করে বল করতে হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *