জেনেনিন ৫ কিংবদন্তি খেলোয়াড় যাদের বিদায়ী ম্যাচে কেঁদেছিল পুরো স্টেডিয়াম

একজন ব্যক্তি কোনও না কোনও দিন তার পেশা থেকে অবসর নেন। খেলোয়াড়দের কথা বলতে গেলেও তারাও কখনোই দীর্ঘদিন খেলা চালিয়ে যেতে পারেন না। একজন তরুণ খেলোয়ার যখন তার

দেশের হয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেন তখন তার ক্যারিয়ারকে খুব স্মরণীয়ভাবে বিদায় জানানোর স্বপ্নও দেখেন। তবে সকল ক্রিকেটারের ক্ষেত্রে এমনটা ঘটেনি। ক্রিকেট বিশ্বে এমন কিছু দুর্দান্ত খেলোয়াড়

ছিলেন যখন তারা ক্রিকেটকে বিদায় জানান সেই সময় মাঠে ও মাঠের বাইরে উপস্থিত সকলেই আবেগ প্রবণ হয়ে পড়েছিলেন এবং সেই মুহূর্তে অনেকেই কেঁদেছিল।
এই প্রতিবেদনে তেমনি পাঁচ  খেলোয়াড়ের সম্পর্কে জানানো হয়েছে:

৫) ব্রায়ান লারা: বর্তমানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল পিছিয়ে গেলেও একটা সময় ছিল যেখানে এই দলে এক দুর্দান্ত ব্যাটসম্যানের আবির্ভাব হয়। ব্রায়ান লারা ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে অসাধারণ অবদান

রেখেছেন। টেস্ট ক্রিকেটে তার ৪০০ রানের অপরাজিত ইনিংসটি আজও অক্ষত রয়েছে। যাইহোক লারা যখন ক্রিকেটকে বিদায় জানান সেই মুহূর্তটি খুবই আবেগঘন ছিল। তার অবসরের শোক দেখা যাচ্ছিল দর্শকদের।

৪) মুত্তিয়া মুরালিধরন: ক্রিকেট বিশ্বে যখনই কোন দুর্দান্ত বোলারের প্রসঙ্গ উঠবে তখনই সবার প্রথমে শ্রীলঙ্কা দলের বিখ্যাত স্পিনার মুত্তিয়া মুরালিধরনের নাম সবার প্রথমে আসবে। তিনি তার টেস্ট

ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ ৮০০ উইকেট নিয়েছেন। এছাড়াও তিনি তার বোলিং দিয়ে যেভাবে ব্যাটসম্যানদের মনে ভয় জাগিয়েছিলেন তা খুব কম বোলারই পেরেছিলেন। মুরলিধরনের শেষ ম্যাচটি ২০১১

বিশ্বকাপের ফাইনাল, কিন্তু পরাজয়ের কারনে ম্যাচটি স্মরণীয় ছিল না তবে এই মুহূর্তটি খুবই আবেগঘন ছিল।

৩) লাসিথ মালিঙ্গা: শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল অনেক দুর্দান্ত খেলোয়াড় তৈরি করেছে, যার মধ্যে এমনই একজন খেলোয়াড় লাসিথ মালিঙ্গা যার নাম খুব সম্মানের সাথে নেওয়া হয়। তিনি তার

ক্রিকেট ক্যারিয়ারে যা কিছু অবদান রেখেছেন তা কখনোই ভোলার নয়। বাংলাদেশের বিপক্ষে তার শেষ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছিলেন। এই ম্যাচে মালিঙ্গাকে স্মরণীয় বিদায় দেওয়া

হয় এবং এই সময় তার পরিবার ও অনুরাগীরা খুবই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিল।

২) সৌরভ গাঙ্গুলী: ভারতীয় ক্রিকেট দলের সেরা ও মহান ব্যাটসম্যানদের নিয়ে যখনই প্রসঙ্গ ওঠে তখন সৌরভ গাঙ্গুলীরও নাম উঠে আসে। ভারতের এই প্রাক্তন অধিনায়ক দলের হয়ে অসাধারণ অবদান

রেখেছেন। গাঙ্গুলি শুধু তার ব্যাটিং দিয়েই নয়, অধিনায়কত্ব দিয়েও সবার মন জয় করেছিলেন। ২০০৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তার ক্যারিয়ারের ইতি টানেন। শেষ টেস্ট ম্যাচে কয়েক ওভারের জন্য

গাঙ্গুলীর সম্মানে তার হাতে অধিনায়কত্ব তুলে দেওয়া হয়। ম্যাচ শেষে গাঙ্গুলীকে আবেগঘন বিদায় জানানো হয়েছিল।

১) শচীন টেন্ডুলকার: বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ খেলোয়াড়দের যখন প্রসঙ্গ উঠবে তখন মাস্টার ব্লাস্টার শচীন টেন্ডুলকারের নাম সবার প্রথমে আসবে। শচীন টেন্ডুলকার তার ২৪ বছর ক্রিকেট ক্যারিয়ারে

ভারতের হয়ে অসামান্য অবদান রেখেছেন। তার ক্যারিয়ারে রয়েছে অনেক ঐতিহাসিক রেকর্ড। এই কারণে টেন্ডুলকারকে ক্রিকেট বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় বলা হয়। ২০১৩ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের

বিপক্ষে তার শেষ ম্যাচ খেলেন। ম্যাচ শেষে ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে শচীনের চোখ জলে ভেসে গিয়েছিল। এই আবেগঘন মুহূর্তে পুরো স্টেডিয়াম কেঁদেছিল। এমন দৃশ্য ক্রিকেট বিশ্ব আগে কখনও দেখেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *