দুর্ঘটনার ১৭ দিন পরে রিশাভ পান্তের অবিশ্বাস্য এক বার্তা! সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল

যেমন দুর্ঘটনায় পড়েছিলেন, রিশাভ পান্তের বেঁচে ফেরা আসলে অলৌকিকভাবেই। ভয়াবহ গাড়ি দুর্ঘটনায় আহত ভারতীয় দলের উইকেটরক্ষক এই ব্যাটারের অবস্থা কেমন, তা জানতে প্রতি

মুহূর্তেই উৎকণ্ঠায় দিন কাটিয়েছেন ভক্ত-সমর্থকরা। অবশেষে দুর্ঘটনার ১৭ দিন পর প্রথমবার মুখ খুললেন পান্ত। জানালেন, তার অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে। এখন সেরে ওঠার পথে আছেন।

শিগগিরই মাঠে ফিরে সতীর্থ-সমর্থকদের সঙ্গে দেখা করতে মুখিয়ে আছেন বলেও জানান পান্ত। সোমবার সন্ধ্যায় পান্ত তার অ্যাকাউন্ট থেকে দুটি টুইট করেছেন। প্রথম টুইটে পান্ত লেখেন,

‘সবরকমের সহযোগিতা এবং শুভেচ্ছার জন্য আমি অভিভূত এবং কৃতজ্ঞ। আমি আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে আমার অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে। সেরে ওঠার যাত্রাটা শুরু হয়েছে। ভবিষ্যতের

চ্যালেঞ্জের জন্য আমি তৈরি। অফুরন্ত সমর্থনের জন্য ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড, জয় শাহ এবং সরকারকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’ প্রথম টুইটের ঠিক ১৪ মিনিট পর পান্তের অ্যাকাউন্ট থেকে দ্বিতীয় টুইট

ভেসে আসে। সন্ধ্যায় সেই টুইটে ভারতীয় দলের তারকা উইকেটরক্ষক এবং ব্যাটার লেখেন, ‘অফুরন্ত ভালোবাসা এবং মনোবল বাড়ানোর জন্য হৃদয় থেকে সকল সমর্থক, সতীর্থ, চিকিৎসক এবং

ফিজিওদের ধন্যবাদ জানাতে চাই। মাঠে সকলের সঙ্গে দেখা করতে মুখিয়ে আছি।’ উল্লেখ্য, গত ৩০ ডিসেম্বর ভারতের উত্তরাখণ্ডের রুরকিতে ভয়াবহ গাড়ি দুর্ঘটনায় আহত হন পান্ত। তার হাঁটুতে

অস্ত্রোপচার হয়েছে। ইএসপিএন ক্রিকইনফোর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ভারতীয় বোর্ডকে যে মেডিক্যাল রিপোর্ট দেওয়া হয়েছিল, তাতে পান্তের হাঁটুর তিনটি গুরুত্বপূর্ণ লিগামেন্ট ছিঁড়ে গিয়েছিল। এরই

মধ্যে দুটি ঠিক করা হয়েছে। তৃতীয় লিগামেন্টের ক্ষেত্রে আরও ছয় সপ্তাহ লাগবে। ফলে ২০২৩ সালে পান্তের পেশাদারি ক্রিকেটে ফেরার সম্ভাবনা কার্যত নেই। আইপিএল খেলার তো সম্ভাবনা নেই-ই।

ঘরের মাঠে আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে যে ওয়ানডে বিশ্বকাপ হবে, তাতেও সম্ভবত খেলতে পারবেন না তিনি। ১৯ জানুয়ারি ফুটবলপ্রেমী দের কাছে একটি অন্যরকম দিন। কারণ এই দিনই তো

দেখা যাবে বিশ্বসেরা দুই অলরাউন্ডার লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। একে অপরের বিরুদ্ধে লড়বে ফুটবল বিশ্বের দুই মহাশক্তি। রিয়াদে পিএসজির মুখোমুখি হবে সৌদি আরবের

সৌদি আরবের একটি দল। সৌদির দুই ক্লাব আল হেলাল ও আল নাছের এর কিছু খেলোয়াড় নিয়ে সৌদির কিং ফাহাদ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে একটি প্রদর্শনী ম্যাচ। যে ম্যাচটিতে অভিষেক হবে

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর। এই স্টেডিয়ামে দর্শক ধারণের ক্ষমতা প্রায় ৬৮০০০। সাধারণভাবেই এই ম্যাচ কে ঘিরে দর্শকদের মাঝে উন্মাদনা ও উত্তেজনার কোন কমতি নেই। ইএসপিএন বলছে পিএসজি

ও সৌদি আরবের এই প্রদর্শনী ম্যাচটি দেখতে অনলাইনে ২০ লক্ষেরও অধিক মানুষ আবেদন করেছেন। বিক্রি শুরুর মাত্র কয়েক মিনিট ব্যবধানে সবগুলো টিকেট বিক্রি হয়ে যায়। সমর্থকদের

আগ্রহের পুরোটা জুড়েই যে রয়েছে ক্রিস্টান রোলান্ডো ও লিওনেল মেসি তার বলার অপেক্ষা রাখে না। প্রায় তিন বছর পর আবারো একে অপরের মুখোমুখি হচ্ছে তাই দর্শকদের মাঝে উত্তেজনা

ওইভাবেই বিরাজ করছে। এর আগে এই দুই তারকা মুখোমুখি হয়েছিলেন গত ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে। সেই ম্যাচে জুভেন্টাসের জার্সি গায়ে মেসির বার্সেলোনার বিরুদ্ধে সিআর সেভেন দুইটি

গোল করেছিলেন। ৩ শুন্য গোলে জয় দিয়ে মাঠ ছেড়েছিল ক্রিস্টানও রোনালদোর দল। অন্যদিকে মুখোমুখি লড়াইয়ে জয়ের দিক থেকে এগিয়ে আছে মেসি। এখন পর্যন্ত এই দুই তারকা ৩৬ টি

ম্যাচ খেলেছে যার মধ্যে ১৬ টি তে জয়লাভ করেছে মেসি এবং ১১ টি তে। এই সবগুলো ম্যাচ মিলিয়ে মেসি গোল করেছেন ২২ টি অন্যদিকে রোলান্ডো গোল করেছেন ২১ টি। হতেও পারে এই

দেখায় শেষ দেখা এই লড়াই শেষ লড়াই। তাইতো দল ছাড়িয়ে দর্শকদের কাছে এই ম্যাচটি একটি এল ক্লাসিকোর ফ্লেভার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *