নিজের পছন্দের পজিশন ছেড়ে দিয়ে ‘গেইম চেঞ্জার’ এর ভূমিকায় ইমরুল

ওপেনার হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মাতালেও সবশেষ কবছরে নিজের ব্যাটিং পজিশন বদলেছেন ইমরুল কায়েস। ঘরোয়াতে খেলছেন কখনও তিন আবার কখনও চার নম্বরে। কুমিল্লা

ভিক্টোরিয়ান্সের জার্সিতে খেলছেন নির্দিষ্ট ব্যাটিং অর্ডার ছাড়াই। ‘গেইম চেঞ্জার’ এর ভূমিকা নিলেও ওপেনিংয়ে খেলা মিস করেছেন ইমরুল। ২০০৮ সালে টেস্টে অভিষেক হওয়া ইমরুলে রঙিন

পোশাকের ক্রিকেট শুরু ২০১০ সালে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে আর পাকিস্তানের সঙ্গে টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয়েছিল তার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের তিন সংস্করণেই ওপেনার

হিসেবে যাত্রা শুরু হয়েছিল তার। লম্বা সময় বাংলাদেশের হয়ে খেললেও কখনই নিজেকে সেভাবে থিতু করতে পারেননি। ক্যারিয়ারের পুরোটা সময় কেটেছে বাংলাদেশ দলে আসা-যাওয়ার

মাঝে। ওপেনার হিসেবে খেলা ইমরুল ক্যারিয়ারে এখন পর্যন্ত টি-টোয়েন্টিতে দুবার চারে, ওয়ানডেতে ১২বার তিনে এবং দুবার ছয়ে খেলেছেন। সাম্প্রতিক সময়ে অবশ্য ঘরোয়াতে ওপেনিং পজিশন

ছেড়েছেন তিনি। বিসিএল, ডিপিএলের মতো টুর্নামেন্টে তিনে বা তার নিচে খেলছেন ইমরুল। কুমিল্লাতে অবশ্য তার নির্দিষ্ট ব্যাটিং পজিশন নেই। দলের যখন প্রয়োজন তখনই ব্যাটিংয়ে করতে

নেমে যান বাঁহাতি এই ব্যাটার। সংবাদ সম্মেলনে নিজের ভূমিকা খোলাসা করেছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে ইমরুল বলেন, ‘আমি দলের প্রয়োজনে যখন দরকার… গেইম চেঞ্জার হিসেবে আমার

ভূমিকাটা আসলে। এখন গিয়ে আমাকে খেলা ধরতে হবে, এই সময়ে গিয়ে আমার খেলার মোড় ঘুরিয়ে দিতে হবে, বলের থেকে রান বেশি করতে হবে। এই ভূমিকাতেই আ’মার খেলা।’ কুমিল্লার

ভালোর জন্যই এমন ভূমিকা বেছে নিয়েছেন ইমরুল। তবে নিজের পছন্দের ওপেনিং পজিশন মি’স করেন তিনি। ব্যাটার হিসেবে পা’ওয়ার প্লের ৬ ওভার কাজে লাগানোর চাওয়া থাকলেও দলের

প্রয়োজনে নিজের জায়গা ত্যাগ করেছেন বলে জানান বাঁহাতি এই ব্যাটার। ইমরুল বলেন, ‘দেখুন, আমি এখন তো কুমিল্লার হয়ে খেলছি, আমার রোলটা কুমিল্লার ভালোর জন্য। হ্যাঁ, আপনি যাদের

নাম বললেন এটা তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। আমি কিন্তু এখন ঘরোয়াতে তিন নম্বরে ব্যাটিং করি। আমি কুমিল্লার হয়ে গত বছর একটা কিংবা দুইটা ম্যাচে ওপেন করেছিলাম।’ ‘একজন ব্যাটার হিসেবে

আমি অবশ্যই চাই পাওয়ার প্লের ৬ ওভার কাজে লাগানোর। কিন্তু এটা আমি মিস করি, সবসময়ই বলি। কিন্তু দলের প্রয়োজনে আমি আ’মার জায়গাটা ছেড়ে দিয়েছি। আমার জায়’গাটা এরকম

খেলাটা যে পরিস্থিতিতে থাকবে সেখান থেকে ব্যাক করাতে হবে। এজন্যই আসলে আমার এই ত্যাগটা। তা ছাড়া আর কিছু না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *