পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে ক্যাচ ফেলে যে কারনে ‘খালিস্তানি’ হয়ে গেলেন আর্শদিপ সিং

গতকাল ৪ সেপ্টেম্বর মুখোমুখি হয়েছিল ভারত-পাকিস্তান। এই ম্যাচে একটি ক্যাচই বদলে দিয়েছিল ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের ভাগ্য। ১৮তম ওভারে আসিফ আলির ক্যাচ ফেলে দিয়েছিলেন ভারতীয় পেসার আর্শদিপ সিং। পরে সেই আসিফই এক ওভারে ১৯ রান নিয়ে ম্যাচের ভাগ্য ঘুরিয়ে দেন।

আর্শদিপের ওই ক্যাচই এখন পুরো ম্যাচের ‘খলনায়ক’ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। আর জাতিতে শিখ বলে আর্শদিপও সমালোচনাকারীদের টার্গেটে পরিণত হয়েছেন।
এরই মধ্যে ভিন্ন একটি ঘটনাও ঘটে গেছে। আর্শদিপের উইকিপিডিয়া পেজের তথ্য কে বা কারা পরিবর্তন করে দিয়েছেন। সেখানে আর্শদিপের দেশ হিসেবে ভারত নয়, লেখা হয়েছে ‘খালিস্তান’।

ভারতীয় মিডিয়ার ধারণা, উইকিপিডিয়া পেজের তথ্য পরিবর্তনের কাজে জড়িত পাকিস্তানের কেউ। এ নিয়ে চরম ক্ষুব্ধ ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার পর্যন্ত। তারা এ নিয়ে তদন্ত শুরু করার ঘোষণা দিয়েছে। এমনকি ঘটনা খতিয়ে দেখতে এরই মধ্যে উইকিপিডিয়ার প্রতিনিধিদের ডেকে পাঠিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় বৈদ্যুতিক ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়।

কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকা জানাচ্ছে, ‘বিশেষ সূত্রের খবর, আট বছর আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উইকিপিডিয়া পেজ যারা সম্পাদনা করেছিল, তারাই অর্শদীপের পেজে পরিবর্তন করেছে। আট বছর আগের ওই ঘটনায় পাকিস্তানের সেনাবাহিনী এবং পারভেজ মোশারফের সমালোচনা করা হয়েছিল।

আসিফ এর পরেই এক শ্রেণির লোক সরাসরি খলনায়ক বানিয়ে দেন অর্শদীপকে। নেটমাধ্যমে তার নামে বিভিন্ন সমালোচনামূলক টুইট ভেসে আসে। এর মধ্যেই কেউ অর্শদিপের উইকিপিডিয়া পেজেও সম্পাদনা করে ‘ভারত’ শব্দের পরিবর্তে অনেকগুলি জায়গায় ‘খালিস্তান’ শব্দ বসিয়ে দেয়।

এতেই নড়েচড়ে বসে মোদি সরকার। কেন্দ্রীয় সরকারের ধারণা, এতে সাম্প্রদায়িক ঐক্য নষ্ট হতে পারে এবং আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখা নিয়ে সমস্যা হতে পারে। তবে পেজে বদল আনার ১৫ মিনিটের মধ্যে তা সরিয়ে দেন উইকিপিডিয়ার সম্পাদকরা।

সংবাদ সংস্থার দাবি, সরকারের তরফে একটি উচ্চপর্যায়ের প্যানেল তৈরি করা হবে। তাঁরা উইকিপিডিয়ার প্রতিনিধিদের জিজ্ঞাসাবাদ করবেন। কী ভাবে অর্শদীপের পেজের বিবরণ বদলাল, তা জানতে চাইতে পারেন। উত্তরে সন্তুষ্ট না হলে সংস্থাকে কারণ দর্শানোর বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হতে পারে।

পাশাপাশি, এতে পাকিস্তানি যোগ রয়েছে কি না, তা-ও খতিয়ে দেখা হবে। প্রসঙ্গত, উইকিপিডিয়ার কিছু পেজ যে কেউ সম্পাদনা করতে পারেন। ফলে কোনও ব্যবহারকারীর পক্ষে এই পেজে ঢুকে সম্পাদনা করা অসম্ভব নয়।

অর্শদিপের পাশে দাঁড়িয়েছেন দুই প্রাক্তন ক্রিকেটার। ক্ষুব্ধ হরভজন সিংহ লিখেছেন, ‘তরুণ অর্শদিপের সমালোচনা বন্ধ করুন। কেউ ইচ্ছে করে ক্যাচ ফেলে দেয় না। আমরা আমাদের ছেলেদের জন্য গর্বিত। পাকিস্তান তুলনায় ভাল খেলেছে। যাঁরা আমাদের দল এবং অর্শদ্বি’

২৩ বছরের আর্শদিপ সমর্থন পেয়েছেন সীমান্তের ওপার থেকেও। পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার হাফিজ লিখেছেন, ‘ভারতীয় দলের সব সমর্থককে অনুরোধ করছি। খেলার মধ্যে আমাদের ভুল হয়েই থাকে। আমরাও মানুষ। দয়া করে কাউকে এই ভুলের জন্য অপমান করবেন না।’ আর্শদিপের পাশে দাঁড়িয়ে ইরফান পাঠান নেটমাধ্যমে লিখেছেন, ‘অর্শদীপ খুবই দৃঢ় চরিত্রের। তুমি এমনই থাকো।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *