বাংলাদেশের ক্রিকেটে প্রধান কোচ ডোমিঙ্গোর ব্যাপারে বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

বাংলাদেশের ক্রিকেটে প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো অধ্যায় কি শেষের পথে? অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে তেমনটাই। এখনও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসেনি। তবে নানা ঘটনা পরিক্রমায় ডোমিঙ্গো অনেকটাই

কোণঠাসা। ডোমিঙ্গোর কোচিং দর্শন নিয়ে কদিন আগে প্রকাশ্যেই সমালোচনা করেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস। এর মধ্যেই জানা গেছে, প্রোটিয়া এই কোচ এশিয়া

কাপে দলের সঙ্গে যাবেন না। টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজার পদ দিয়ে ভারতের শ্রীধরন শ্রীরামকে এশিয়া কাপে পাঠাচ্ছে বিসিবি। তার সঙ্গে আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত চুক্তি হয়েছে। শোনা

যাচ্ছে, এশিয়া কাপের পর আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে টি-টোয়েন্টি হেড কোচ ঘোষণা করতে পারে বিসিবি। তাহলে ডোমিঙ্গোর কী হবে? এখনও পরিষ্কার নয়। ডোমিঙ্গোকে শুধু টেস্ট আর ওয়ানডে দলের

কোচ হিসেবে রেখে দেওয়ার কথা শোনা গেলেও প্রোটিয়া এই কোচ শেষ পর্যন্ত থাকবেন কি না, তা নিয়ে আছে সংশয়। জিম্বাবুয়ে সফরের পর এক সপ্তাহ ছুটি কাটিয়ে শুক্রবার বাংলাদেশে ফিরেছেন

ডোমিঙ্গো। বিসিবির সঙ্গে তার ২২ আগস্ট বৈঠক হওয়ার কথা। গুঞ্জন আছে, সেই বৈঠকই হতে পারে বিসিবির সঙ্গে ডোমিঙ্গোর শেষ বৈঠক। ডোমিঙ্গো নাকি স্বাধীনভাবে দল পরিচালনা করতে

পারছেন না অনেক দিন ধরেই, সেটা নিয়ে অসন্তোষ রয়েছে। এবার বৈঠকের পর দক্ষিণ আফ্রিকা ফিরে গেলে আর নাও আসতে পারেন টাইগারদের হেড কোচ, এমন খবর বেরিয়েছে দেশের একটি

প্রথমসারির দৈনিকে। প্রতিবেদনে প্রকাশ, ২০২১ সালের জিম্বাবুয়ে সফরের একমাত্র টেস্টে একাদশে না রাখার কারণে ডোমিঙ্গোর সঙ্গে বাজে ব্যবহার করেন এক ক্রিকেটার। ডোমিঙ্গো বিসিবি

বরাবর এ নিয়ে অভিযোগও করেন। কিন্তু বিসিবি সেই অভিযোগের ভিত্তিতে কোনো ব্যবস্থাই নেয়নি। এবার জিম্বাবুয়ে সফরে আরেকবার নিজের গুরুত্বহীনতা বুঝতে পারেন ডোমিঙ্গো।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচে মাহমুদউল্লাহকে নাকি দলে চাননি তিনি। কিন্তু টিম ম্যানেজম্যান্টের সিদ্ধান্তে মাহমুদউল্লাহ ওই ম্যাচটি খেলেন। শুধু এবারই নয়, এর আগেও

কয়েকবার অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের সামলাতে হিমশিম খেয়েছেন ডোমিঙ্গো। কিন্তু বিসিবি তাকে কাজের স্বাধীনতা দেয়নি। সবকিছু মিলিয়ে প্রোটিয়া এই কোচ বেশ কোণঠাসা। তার সঙ্গে ২০২৩ সালের

বিশ্বকাপ পর্যন্ত বিসিবির চুক্তি আছে। তবে ওতদিন পর্যন্ত সম্ভবত অপেক্ষা করবেন না ডোমিঙ্গো। দল বাছাইয়ে স্বাধীনতা না পাওয়া, এর সঙ্গে যোগ হয়েছে খারাপ ফল। পরিবেশ-পরিস্থিতি কোনোকিছুই যে তার অনুকূলে নেই!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *