বেড়িয়ে এলো হাড়ির খবর! ইনজুরির নয়, অন্য যে কারণে দল থেকে বাদ পড়লেন শরিফুল

গেল কয়েক দিন আগে জিম্বাবুয়ে সফরে প্রথম ওয়ানডে খেলার সময়ই চোটে পড়েন বাংলাদেশের অন্যতম ব্যয়বহুল বোলার শরিফুল ইসলাম। প্রথম ম্যাচে তিনি ৮.৪ ওভার বল করে মাঠ থেকে

উঠে যান। ওই ম্যাচে দিয়েছিলেন ৫৭ রান। পরে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ফিরলেও ৯ ওভারে রান দিতে দ্বিধা করেননি তিনি। ৭৭ রান দিয়ে ছিলেন বিনিময়ে কোন উইকেট পাননি। শরিফুলের সঙ্গে

চোট শঙ্কা ছিল দলের অন্যতম তারকা বোলার মোস্তাফিজুর রহমানেরও। তাই তড়িঘড়ি করে জিম্বাবুয়েতে পাঠানো হয় পেসার টেস্ট দলের নিয়মিত মুখ এবাদত হোসেনকে। শরিফুলকে শেষ

ওয়ানডেতে খেলানো হয়নি। এবাদতই নেন তার জায়গা। চোট থাকলে আগাম সতর্কতা হিসেবে টিম ম্যানেজম্যান্ট একাদশের নিয়মিত কোনো খেলোয়াড়কে ড্রপ করতেই পারে। কিন্তু

এশিয়া কাপেও শরিফুলের স্কোয়াডে জায়গা না পাওয়া নিয়ে নতুন গুঞ্জন বাতাসে। বাঁহাতি এই পেসার নাকি বোলিংয়ে মার খেলে ইচ্ছে করেই চোটের অভিনয় করেন। তাই তাকে বাদ দেওয়া

হয়েছে। এশিয়া কাপে শরিফুলের জায়গা না পাওয়ার পেছনে কি এটাই কারণ? দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন উড়িয়ে দিলেন এমন গুঞ্জন। সুজন পরিষ্কার করেই জানান, অফফর্মের

কারণে বাদ পড়েছেন শরিফুল। অন্য কোনো কারণে নয়। সুজন বলেন, ‘ইনজুরির ভান করে খেলেনি শরিফুল, এমন কথা সত্য নয়। আমার জানামতে, এমন কিছু ঘটেনি জিম্বাবুয়েতে।’ টিম

ডিরেক্টর যোগ করেন, ‘আর ইনজুরির ভান করে না খেলার কোনো সুযোগও নেই। দলের সঙ্গে চিকিৎসক, ফিজিও থাকেন। ফিজিও রিপোর্ট দিয়েছেন, আমাদের জানিয়েছেন শরিফুলের ব্যথা

ছিল। আমার মনে হয় না ইনজুরির ভান করার কিছু আছে।’ যেহেতু তাকে এশিয়া কাপে নেওয়া হয়নি। তাই প্রশ্নটা জোরালো হয়েছে। সুজনের পরিষ্কার ব্যাখ্যা, ‘শরিফুল এশিয়া কাপ স্কোয়াডে

জায়গা পায়নি, কারণ সে জিম্বাবুয়ে সফরে ভালো বল করেনি। এককথায় অফফর্মের কারণেই তাকে এশিয়া কাপে নেওয়া হয়নি। এখানে অন্য কোনো ব্যাপার নেই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *