ভারতের পক্ষ নিলেন ওয়াসিম, রমিজের পিসিবি সভাপতিত্ব হারানোর জন্য দোষ দিলেন তাকে

বিশ্ব ক্রিকেটেরই অন্যতম কারিশমা ছিলেন ওয়াসিম আকরাম। পাকিস্তান ক্রিকেটের গ্রেট ইমরান খানের আবিষ্কার এই বাহাতি পেসার। তর্ক সাপেক্ষে সর্বকালের সেরা বাহাতি পেসার ওয়াসিম।

অধিনায়ক হিসেবেও দারুন সফল ছিলেন সুলতান অফ সুইং খ্যাত এই ক্রিকেটার। ক্রিকেটীয় জীবনে যেমন নিজের আনপ্রেডিক্টেবল বোলিংয়ের জন্য বিখ্যাত ছিলেন, তেমনি ক্রিকেট পরবর্তী

জীবনে নিজের আনপ্রেডিক্টেবল মন্তব্যের জন্য বিখ্যাত সাবেক এই অধিনায়ক। আচমকাই নিজের এক সময়কার সতীর্থ এবং সদ্য সাবেক হওয়া পিসিবি সভাপতিকে নিয়ে মন্তব্য করেন ওয়াসিম।

তার এই মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করে। রমিজ রাজার ব্যাপারে ওয়াসিম আকরাম মন্তব্য করেন”এটি ভুল ধারণা একটি ক্রিকেটারই বোর্ড সভাপতির দায়িত্বে থাকা

উচিত। আমি মনে করি এখানে পরিচালনার কিছু বিষয় বস্তু থাকে ফলে আপনাকে সবার সাথে সমন্বয়ে রেখে কাজ করতে হবে। বর্তমানে পিসিবির সভাপতি নাজাম সেঠি এই কাজের জন্য

উপযুক্ত। রমিজ ভাই নিজের আসল জায়গাতেই ফিরেছেন। কমেন্ট্রি এবং খেলাধুলা বিষয়ক বিশ্লেষণ করাটাই তার জন্য ভালো”। ক্রিকেট ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ অধিনায়ক ইমরান খান যখন পাকিস্তানের

প্রধানমন্ত্রী হন তখন রমিজ রাজাকে বোর্ড সভাপতির দায়িত্ব দেন তিনি। পরবর্তী সময়ে ইমরান খানের সাথে সমন্বয় করে পাকিস্তান ক্রিকেটের উন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেন রমিজ। রমিজের

আমলেই সাম্প্রতিক সময়ের হিসেবে সেরা সাফল্যগুলো পায় পাকিস্তান। এই সময় টি-টোয়েন্টিতে একের পর এক সিরিজ জয়, ২০২১ বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলা, ২০২২ এশিয়া কাপের

ফাইনাল খেলা এবং সর্বশেষ ২০২২ টি২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে উত্তীর্ণ হওয়া। সবমিলিয়ে রমিজের অধীনে দারুন সাফল্য দেখছিল পাকিস্তান ক্রিকেট। পাকিস্তানে অনূর্ধ্ব ১৯ ফ্রাঞ্চাইজি লিগ শুরু

করারও অভিনব এক উদ্যোগ নিয়েছিলেন রমিজ। এছাড়াও ঘরোয়া লীগের মান উন্নয়ন এবং ঘরোয়া ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক বৃদ্ধিতেও ভূমিকা রেখেছিলেন সাবেক পিসিবি সভাপতি। তবে

তাকে সরিয়ে দেওয়ার পর থেকেই তার নেওয়া অধিকাংশ উদ্যোগ বাতিল করে দিয়েছে বর্তমান পিসিবি সভাপতি। মূলত অনাস্থা ভোটে ইমরান খানের সরকার পড়ে যাওয়ার পর থেকেই এক ধরনের

দ্বিধা দ্বন্দ্বে সময় কাটাতে হয় রমিজকে। তবে পাকিস্তান দল একের পর এক সাফল্য পেতে থাকায় তৎক্ষণাৎ রমিজকে সরাতে পারেনি সরকার। তবে ইমরান খানের লোক হওয়ায় রমিজের পতন

যে অনিবার্য তা বোঝাই যাচ্ছিল। অবশেষে ২০২২ এর শেষে সরিয়ে দেওয়া হয় রমিজকে। পিসিবি সভাপতি থাকাকালীন এশিয়া কাপ খেলতে ভারত জাতীয় দলের পাকিস্তানে আসার ব্যাপারে

আপত্তিকে ভালোভাবে নেয়নি রমিজকে। তিনি এমনও মন্তব্য করেন যে ভারত পাকিস্তানে এশিয়া কাপ খেলতে না এলে পাকিস্তানও ভারতে বিশ্বকাপ খেলতে যাবে না। তবে নতুন পিসিবি সভাপতি

নাজাম শেঠি সিদ্ধান্ত সরকারের উপর ছেড়ে দিয়েছেন। ওয়াসিম আকরামও নাজাম শেঠির সাথে তাল মিলিয়ে মন্তব্য করেছেন”এটি পাড়ার ক্রিকেট নয় যে কেউ একজন খেলতে না আসলে আমরাও

সেখানে খেলতে যাব না। এখানে সিদ্ধান্ত সরকারের হাতে ছেড়ে দেওয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ। আমরা চাইলেই বিশ্বকাপের মতো একটি টুর্নামেন্ট বয়কট করতে পারিনা”। নিজের সতীর্থ এবং খেলোয়াড়ই

জীবনের বড় ভাইয়ের পাশে না দাঁড়িয়ে নাজম শেঠির পাশে দাঁড়াচ্ছেন ওয়াসিম। এছাড়াও ভারত পাকিস্তানে খেলতে না আসার পরও ভারতের প্রতি কোন অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেননি ওয়াসিম। দেখা যাচ্ছে

কিং অফ সুলতানের বোলিংয়ের মতোই তার কথাবার্তাও বেশ আন্তেডিক্টেবল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *