মাত্র পাওয়াঃঅন্যরা সংগ্রাম করেন, সাকিব কেন পারেন বিস্তারিত দেখে নিন

স্পেশাল করেসপন্ডেন্টঃ এশিয়া কাপ খেলতে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাওয়ার আগে গত ২২ আগস্ট অফিসিয়াল সংবাদ সম্মেলনে হাজির হয়েছিলেন বাংলাদেশের টি-২০ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ওই সংবাদ সম্মেলনে তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল যে, আপনি এত কম অনুশীলন করেও পারফর্ম করেন ধারাবাহিকভাবে। বাংলাদেশের অন্য ক্রিকেটাররা এত অনুশীলন করেও কেন পারফর্ম করতে ব্যর্থ?

উত্তরে সতীর্থদের বেশ সম্মান দিয়েই নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন বাঁহাতি এই অলরাউন্ডার।
বাংলাদেশের ক্রিকেটে এই আলোচনা অবশ্য নতুন নয়। মাঠে সাকিব যা পারেন, বাকিরা কেন পারেন না? ২০১৯ বিশ্বকাপে সাকিব অতিমানবীয় পারফরম্যান্স করেছেন। কিন্তু বাকিরা ব্যর্থ হওয়ায় দলটা সেমিতে খেলেনি।

সোমবার আইসিসি একাডেমিতে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট শ্রীধরণ শ্রীরাম বাংলাদেশের বাকি ক্রিকেটারদের সঙ্গে সাকিবের পার্থক্যটা তুলে ধরেছেন।এক প্রশ্নের জবাবে এই ভারতীয় কোচ বলেছেন, ‘সাকিব ও অন্য ক্রিকেটারদের মধ্যে একটা মূল পার্থক্য হলো এক্সপোজার। সাকিব বিভিন্ন লিগে, ভিন্ন ভিন্ন কন্ডিশনে খেলে।

অনেক বছর ধরে আইপিএল খেলছে। সিপিএলে মানে বিশ্বজুড়ে খেলছে। আমার মনে হয়, একটা বড় পার্থক্য, হলো, সে অনেক সুযোগ পাচ্ছে। এখানে নজর দিতে হবে, বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের যতটা সম্ভব এক্সপোজার দেওয়ার চেষ্টা করতে হবে, যেন তারা তাড়াতাড়ি শিখতে পারে।’
সম্প্রতি সাকিবের বোলিং অ্যাকশনে কিছুটা পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। বিশেষ করে বোলিং রানআপে। ছোট রানআপে দ্রুত ছুঁটছেন, আবার দ্রুত ডেলিভারি দিচ্ছেন।

টেকনিক্যাল এই পরিবর্তন নিয়ে শ্রীরাম বলেছেন, ‘সাকিব অনেক বুদ্ধিমান ক্রিকেটার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ও ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটের গতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে হলে আপনাকে প্রতিনিয়ত উন্নতি করতে হবে। সাকিবের মতো ক্রিকেটাররা এই কাজে খুবই ভালো। কারণ তারা লম্বা সময় ধরে ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করে আসছে। একমাত্র রহস্য হলো তারা প্রতিনিয়ত নিজেদের খেলার উন্নতি করে, তা দিয়েই প্রতিপক্ষ বোলার বা ব্যাটসম্যানকে পরাস্ত করে। সাকিব এটা নিয়মিত করে, এর কৃতিত্ব তারই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *