শান্তর শুরুটা রিজওয়ানের মতোই!

নিজের ব‌্যাটিংয়ের খোলনলচে পাল্টে টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ের এক নম্বর ব‌্যাটসম‌্যান হয়েও মোহাম্মদ রিজওয়ানকে শুনতে হয়েছে, ‘ধীর গতির ব‌্যাটিং করো।’ অথচ তার রানে দল জিতেছে।

সাফল‌্যে ভেসেছেন ডানহাতি ব‌্যাটসম‌্যান। এক মৌসুমে এই ফরম‌্যাটে দুই হাজারেরও বেশি রান করেছেন। তবুও রিজওয়ানের ব‌্যাটিং নিয়ে সমালোচনা কম হয়নি। সেসব সমালোচনা রিজওয়ান

উড়িয়েছেন এভাবে, ‘আমার ভূমিকাকে বিব্রতকর মনে হতে পারে। কিন্তু আমি জানি আমি কি করছি। কারণ, দল আমার কাছে যা চাইছে আমি ঠিক তাই করছি।’ দলের চাহিদা পূরণ করতে পারছেন

বলেই পাকিস্তান দলের নিয়মিত ওপেনার রিজওয়ান। ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটেও যার চাহিদা তুঙ্গে। তার মতোই গল্পটা নাজমুল হোসেন শান্তর। দলের চাওয়া অনুযায়ী খেলছেন বলে মারকাটারি টি-টোয়েন্টি

ফরম‌্যাটে ধীরগতিতে লম্বা হয় তার ইনিংস। তা নিয়ে সমালোচনার শেষ নেই। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেই কোচ শ্রীধরণ শ্রীরাম ও অধিনায়ক সাকিব আল হাসান তাকে দীর্ঘ সময় ক্রিজে থাকতে

বলেছেন। লম্বা করতে বলেছেন ইনিংস। সময়টা অন্তত ১৫-১৬ ওভার। তাতে শান্ত অনেক সময় সফল হয়েছেন। অনেক সময় ব‌্যর্থ। কিন্তু তার কাছে দলের চাওয়াটাই মূখ্য। আত্মবিশ্বাসী কণ্ঠে

এ ওপেনার বললেন, ‘দলের তো একটা পরিকল্পনা থাকে। বিশ্বকাপে পরিকল্পনা যেমন ছিল, আমি যেন ১৫-১৬ ওভার ব‌্যাটিং করতে পারি। সেটা কোচ-অধিনায়কই আমাকে দিয়েছিলেন। আবার

পরিস্থিতি, উইকেট যদি ভালো থাকে তাহলে আমাকে ওই মোতাবেক ব‌্যাটিং করা লাগে। ওইদিন ভিন্ন থাকে (ভূমিকা)। বেশিরভাগ সময় পরিকল্পনা ওইটাই থাকে যে, আমি যেন ১৫-১৬ ওভার লম্বা করতে

পারি। সিলেট দলেও একই পরিকল্পনা। আমি যত বেশি ব‌্যাটিং করতে পারি। এর মানে এই না যে আমি ৫০ বলে ৫০ করবো। একেক দিন একেক রকম হতে পারে।’ সঙ্গে যোগ করলেন, ‘বাইরের

কথা নিয়ে আমি চিন্তিত না। দল জিনিসটা চাচ্ছে সেটা আমি দিতে পারছি কি না। আমার মনে হয় কিছুটা দিতে পারছি। এর চেয়ে বেশি দেওয়ার সামর্থ‌্য আমার আছে।’ বরিশালের বিপক্ষে তার

আজকের ইনিংসটিও অনেকটা সেরকইম ছিল। টস হেরে ব‌্যাটিং করতে নেমে সিলেট স্ট্রাইকার্স দ্বিতীয় ওভারে ৩ উইকেট হারায়। পেসার মোহাম্মদ ওয়াসিমের তোপে জাকির, তৌহিদ ও মুশফিক

ড্রেসিংরুমে। সেখানে শান্ত দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়ে প্রতিরোধ গড়েন টম মুরসকে নিয়ে। ইনিংসের শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে শান্ত ৬৬ বলে ৮৯ রান করেন ১১ চার ও ১ ছক্কায়। অথচ প্রথম ৪৮ রান

করেছিলেন ৪৭ বলে। পরের ৪১ রান করতে খেলেন ১৯ বলে। এক ইনিংসে দুই রকম চিত্র। দুটোই পরিস্থিতির দাবি বলে জানালেন শান্ত, ‘ব‌্যাটিংয়ে স্বাধীনতা সব জায়গায় পাচ্ছি। শুরুতে স্লো খেলার

কারণটা আপনারা জানেন। শুরুতেই আমরা ৩ উইকেট হারাই। পরিস্থিতিটা মানিয়ে ব‌্যাটিং করে গেছি। এরপর যখন জুটি হয়েছে তারপর ইনিংসটা ক‌্যারি করেছি।’ এবার বিপিএলে তার ব‌্যাটে রানের

ফুলঝুরি। ৭ ম‌্যাচে তার ব‌্যাট থেকে এসেছে ২৮১ রান। রান তোলার তালিকায় আছেন তৃতীয় স্থানে। তবে রান ক্ষুধায় থাকা এ ক্রিকেটার নিজেই বুঝছেন উন্নতির আরও জায়গা আছে। সামর্থ‌্য আছে

আরও বড় কিছু করার। পায়ের নিচে জমিন শক্ত করা শান্ত আরও ভালো কিছুর আশায় আছেন, ‘ব‌্যাটিং ভালো হচ্ছে। আরও ভালো করার সামর্থ‌্য আছে। সেই বিশ্বাস আমার কাছে। আরও কতোটা

উন্নতি করতে পারি সেই চেষ্টা করে যাচ্ছি। এই ইনিংসগুলো যে হচ্ছে সেগুলো নিয়ে যে আমি অনেক খুশি তা না। আমার কাজ নিয়মিত রান করা।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *