হেড কোচ, ব্যাটিং কোচ ছাড়াই দলকে যেতে হতে পারে এশিয়া কাপের উদ্দেশ্যে, দেখেনিন চূড়ান্ত ঘোষণার দিনক্ষণ

২৮ অক্টোবর ২০০৭-এ, যখন জেমি সিডন্স প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের দায়িত্ব নেন, তখনও তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

খেলছিলেন। তারপর থেকে বর্তমান সিনিয়র টাইগার ক্রিকেটাররা সিডন্সের সহায়তায় আন্তর্জাতিক মঞ্চে বড় তারকা হয়ে উঠেছেন। এক শতাব্দী আগে সিডন্সের হাত ধরে টাইগার ক্রিকেটের এই

প্রচারের জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড আবার সিডন্সের সাথে যোগাযোগ করছে। ফলস্বরূপ, বিসিবি ২০২২ সালে সিডন্সকে ব্যাটিং কোচ হিসাবে ফিরিয়ে আনে। উদ্দেশ্য ব্যাটসম্যানদের উন্নতি করা।

সিডন্স রাজি হন। কোচ বিসিবি প্রধানকে বলেছেন, এক বছরের মধ্যে ব্যাটসম্যানদের কাজের জন্য প্রস্তুত করবেন কোচ। সিডন্সকে নিয়ে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান আজ (১৯ আগস্ট) গণমাধ্যমে

বলেন, ‘সিডন্সের সঙ্গে কথা আগে থেকেই ছিল যে শুধু জাতীয় দল নিয়ে কাজ করবে না, ডেভেলপমেন্টে কাজ করবে। ওরও ইচ্ছে এরকমই ছিল। কিন্তু এখানে আসার পর শুধু জাতীয় দলের সঙ্গেই

ভ্রমণ করছে। ডেভেলপমেন্টে কাজই করতে পারছে না। জাতীয় দলের ব্যস্ততার ফাঁকে সময়ই পাচ্ছে না। সামনে সে মূলত ডেভেলপমেন্টে কাজ করবে। বিভিন্ন বয়সী ১০-১৫-২০টি ছেলে যদি আমরা

তাকে দিয়ে দেই, এইচপিতে এরকম ছেলে আছে, ‘এ’ দল, বাংলাদেশ টাইগার্সে আছে। ওদের নিয়ে কাজ করে সে তৈরি করে দেবে। সে এক বছর সময় চাচ্ছে। এরপর সে (ব্যাটিং) পজিশন ধরে ধরে

আমাদের ব্যাটসম্যান দিতে পারবে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সে (সিডন্স) অবশ্যই জাতীয় দলের সঙ্গে যাব। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, এশিয়া কাপে তাকে পাঠাব কিনা। না পাঠালে দলকে যেতে হবে ব্যাটিং

কোচ ছাড়া, এটাও খারাপ। আবার সে গেলে এখানে ডেভেলভপমেন্টের কাজ হবে না। অনেক ইস্যু আছে। এসব নিয়ে আলাপ-আলোচনা হচ্ছে। ২২ তারিখে আমরা আশা করি চূড়ান্ত করে ফেলব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *